সমাজবিমুখ ইবাদত আর ইবাদতবিমুখ সমাজমুখিতা

শহীদ মোতাহহারী


সমাজবিমুখ ইবাদত আর ইবাদতবিমুখ সমাজমুখিতা

সমাজবিমুখ ইবাদতকারী আর ইবাদতবিমুখ সমাজমুখিতা -উভয়ই নিন্দনীয়: (লেখক)শহীদ অধ্যাপক আয়াতুল্লাহ মুর্তাজা মুতাহহারি 

 (ভারসাম্যপূর্ণ নয় এমন আদর্শের অনুসারীদের কারণে) কখনো কখনো কোন কোন মূল্যবোধ অন্যান্য মূল্যবোধকে নিশ্চিহ্ন করে দেয়। এক সময় ইসলামী সমাজ ইবাদতের মূল্যবোধের দিকে ঝুঁকে পড়েছিল এবং বাড়াবাড়ি এমন পর্যায়ে গিয়েছিল যে, অন্যান্য মূল্যবোধ ধ্বংস করছিল। বর্তমানে আমি লক্ষ্য করছি অন্য আরেক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে; কেউ কেউ কেবল ইসলামের সামাজিক মূল্যবোধকেই দেখেন বা কেবল এ দিকটিকেই গুরুত্ব দেন, কিন্তু এর খোদায়ী দিককে ভুলে যান। তাঁরা আরেকটি ভুল ও বিচ্যুতির মধ্যে পড়েছেন- এক আরবের গাধায় চড়ার মতো যে গাধায় উঠার জন্য এমন জোরে লাফ দিল ফলে অন্য পার্শ্বে গিয়ে পড়ল। ফলে প্রথম প্রচেষ্টায় সে গাধায় উঠতে পারল না। দ্বিতীয় বারও সে তা-ই করল। তখন নিজেই বলল, كَ الاوَّل অর্থাৎ প্রথম বারের মতোই।

যদি এমন অবস্থা হয় যে, ইসলামের ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থা থেকে বের হয়ে যাব, তবে সমাজবিমুখ ইবাদতকারী আর ইবাদতবিমুখ সমাজমুখিতার মধ্যে কোন পার্থক্য নেই।

দেখুন, মহান আল্লাহ্ সূরা ফাত্হের শেষ রুকুতে কি বলছেন (এমন নমুনা কোরআনে আরও রয়েছে),

مُحَمَّدٌ رَسُوْلُ اللَّهِ وَ الَّذِيْنَ مَعَهُ أَشِدَّآءُ عَلَى الْكُفَّارِ وَ رُحَمَآءُ بَيْنَهُم

রাসূলুল্লাহর প্রশিক্ষিত সাহাবীরা কিরূপ? মুসলমানদের প্রকৃত শত্রু অর্থাৎ কাফেরদের মোকাবিলায় কঠিন, কঠোর, দৃঢ় ও মজবুত যেমন সীমা ঢালা প্রাচীর।


إِنَّ اللِّهَ يُحِبُّ الَّذِيْنَ يُقَاتِلُونَ فِى سَبِيْلِهِ صَفًّا كَأَنَّهُمْ بُنْيَانٌ مَرْصُوْصٌ

-(সূরা ছফ : ৪)


কিন্তু এরা দু
রূপের অধিকারী- ইসলামের প্রকৃত শত্রুদের মোকাবিলায় তারা কঠোর ও মজবুত, কিন্তু নিজেদের মধ্যে স্নেহশীল, দয়ালু, ঐক্যবদ্ধ ও ভালবাসায় সম্পর্কিত। কোরআনের ভাষায় এটা ইসলামী সমাজের বৈশিষ্ট্য (আমরা কয়েক শতাব্দী হলো সেটাকে ভুলতে বসেছি)। কোরআন সূরা ফাত্হের শেষ আয়াতে বলছে-



1 2 3 4 next