পবিত্রতা (তাহারাত)

ড. মোহাম্মদ সামিউল হক


৭- মাসেহ্‌র স্থান অবশ্যই পবিত্র থাকতে হবে। যদি নাজিস থাকে এবং তা পানি দিয়ে ধোয়া সম্ভব না হয় তবে তায়াম্মুম করতে হবে (তৌযিহুল মাসায়েল, মাসআলা নং-২৬০)

এরতেমাসি ওযু

১- এরতেমাসি ওযু এমন যে, মানুষ মুখমণ্ডল ও হাতদ্বয়কে ওযুর নিয়তে পানির নিচে ডুবিয়ে থাকে এবং ওযুর নিয়তে তা বের করে নিয়ে আসে (তৌযিহুল মাসায়েল, মাসআলা নং-২৬১)।

২- যেহেতু এরতেমাসি ওযুতেও মুখমণ্ডল ও হাতদ্বয় অবশ্যই উপর থেকে নিচের দিক ধুতে হবে তাই এই ওযু নিম্নলিখিতভাবে পানির নিচে আঞ্জাম দিতে হবে যথা:

ওযুর নিয়তে মুখমণ্ডলকে কপাল হতে অথবা হাতদ্বয়কে কনুই থেকে পানির মধ্যে ডুবাতে হবে, আর যখন সেগুলোকে পানি থেকে উঠিয়ে আনা হবে এবং পানি ঝরে পড়া শেষ হওয়া পর্যন্ত ওযুর নিয়তে থাকতে হবে। কেননা যে পানি হাতে অবশিষ্ট থাকবে তা দিয়েই মাসেহ্‌ করতে হবে তাই তা ওযুর পানি হওয়া বাঞ্চনিয়।

ওযুর নিয়তবিহীন অবস্থায় মুখমণ্ডল অথবা হাতদ্বয় পানির নিচে নিয়ে যেতে হবে এবং ওযুর নিয়তে তা উঠিয়ে আনতে হবে তবে মুখমণ্ডলকে অবশ্যই প্রথমে কপাল থেকে এবং হাতদ্বয়কে কনুই থেকে উঠিয়ে আনতে হবে (তৌযিহুল মাসায়েল, মাসআলা নং-২৬১ ও ২৬২)

৩- যদি ওযুর কিছু অংশকে এরতেমাসি এবং কিছু অংশকে অন্য ওযুর পদ্ধতিতে আঞ্জাম দিয়ে থাকে তবে তাতে কোন অসুবিধা নেই (তৌযিহুল মাসায়েল, মাসআলা নং-২৬৩) (এরতেমাসি ওযুতেও পর্যায়ক্রমিকতা বা ধারাবহিকতা রক্ষা করতে হবে; অর্থাৎ মুখমণ্ডল ও হাতদ্বয়কে এক সঙ্গে পানির নিচে নিয়ে যেতে পারবে না, বরং অবশ্যই প্রথমে মুখমণ্ডল ও তারপর ডান হাত এবং পরে বাম হাত ধুতে হবে)।

যে ব্যক্তির হাত অথবা পা কাটা পড়েছে তার ওযু করার পদ্ধতি (আল্‌ উরওয়াতুল উসাক, খন্ড-১, পৃঃ-২০৪, ইসতিফতায়াত, খণ্ড-১,পৃঃ-২৯,৩০,৩১ প্রশ্নঃ- ২০ থেকে ২৪ ও ২৬)

১- হাত কাটা পড়ার ক্ষেত্রে দুই অবস্থা হতে পারে :

ক)- একটি হাত:



back 1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 next