সূরা আলে ইমরান ১৮-২২

রেডিও তেহরান

সূরা আলে ইমরান; আয়াত ১৮-২২ (পর্ব ৪)

সূরা আলে ইমরানের ১৮ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে-

شَهِدَ اللَّهُ أَنَّهُ لَا إِلَهَ إِلَّا هُوَ وَالْمَلَائِكَةُ وَأُولُو الْعِلْمِ قَائِمًا بِالْقِسْطِ لَا إِلَهَ إِلَّا هُوَ الْعَزِيزُ الْحَكِيمُ

"আল্লাহ নিজেই সাক্ষ্য দেন যে, তিনি ছাড়া আর কোন উপাস্য নেই। ফেরেশতাগণ এবং ন্যায়নিন্ঠ জ্ঞানীগণও সাক্ষ্য দিয়েছেন যে, তিনি ছাড়া আর কোন ইলাহ্ নেই। তারা সবাই আল্লাহর সুবিচারে আস্থা স্থাপনকারী। তিনি পরাক্রমশালী প্রজ্ঞাময়।" (৩:১৮)

এই আয়াতে মহানবী (সাঃ) ও মুসলমানদের উদ্দেশ্য করে বলা হয়েছে যে, কাফেরদের অবিশ্বাস ও মুশরিকদের অংশীবাদিতা যেন তোমাদেরকে নিজেদের বিশ্বাসের প্রতি সন্দিহান না করে। কারণ, প্রকৃত জ্ঞানী ও যুক্তিবাদী মানুষেরা আল্লাহর একত্বের ব্যাপারে সাক্ষ্য দিয়েছেন। এছাড়াও তারা এ সাক্ষ্য দেয় যে, বিশ্ব জগতের ব্যবস্থাপনা ন্যায়বিচারের ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠিত এবং এ ক্ষেত্রে কোনো বাড়াবাড়ি লক্ষ্য করা যায়না। আর এ বিষয়টি নিজেই আল্লাহর একত্বের সাক্ষ্য বহন করছে। অর্থাৎ আল্লাহ এ বিশ্ব জগতের যা কিছুই সৃষ্টি করেছেন, যেমন- আকাশ,ভূমি,পাহাড়,নদী,সাগর,উদ্ভিদ,পশু-পাখী ইত্যাদি-সবই একই ব্যবস্থার অধীনে পরিচালনা করছেন। আর এসবই কার্যত আল্লাহর একত্বের সাক্ষ্য দিচ্ছে এবং ফেরেশতারাও আল্লাহর কর্মীবাহিনী হিসেবে জগত পরিচালনায় নিয়োজিত থেকে আল্লাহর একত্বের সাক্ষ্য দিচ্ছে।

এই আয়াতের শিক্ষণীয় দিকগুলো হলো,

প্রথমত : বিশ্বজগতের শৃঙ্খলা ও বিভিন্ন সৃষ্টির মধ্যে সমন্বয় আল্লাহর একত্বের সুস্পষ্ট এবং সবোর্ৎকৃষ্ট প্রমাণ।
দ্বিতীয়ত: জ্ঞান তখনই উপকারী বা কল্যাণকর হয়,যখন তা মানুষকে আল্লাহমুখী করে। আর ঈমান তখনই গুরুত্ব পায় যখন তা হয় জ্ঞান ও যুক্তিভিত্তিক।

সূরা আলে ইমরানের ১৯ ও ২০ নম্বর আয়াতে মহান আল্লাহ বলেছেন-

إِنَّ الدِّينَ عِنْدَ اللَّهِ الْإِسْلَامُ وَمَا اخْتَلَفَ الَّذِينَ أُوتُوا الْكِتَابَ إِلَّا مِنْ بَعْدِ مَا جَاءَهُمُ الْعِلْمُ بَغْيًا بَيْنَهُمْ وَمَنْ يَكْفُرْ بِآَيَاتِ اللَّهِ فَإِنَّ اللَّهَ سَرِيعُ الْحِسَابِ (19) فَإِنْ حَاجُّوكَ فَقُلْ أَسْلَمْتُ وَجْهِيَ لِلَّهِ وَمَنِ اتَّبَعَنِ وَقُلْ لِلَّذِينَ أُوتُوا الْكِتَابَ وَالْأُمِّيِّينَ أَأَسْلَمْتُمْ فَإِنْ أَسْلَمُوا فَقَدِ اهْتَدَوْا وَإِنْ تَوَلَّوْا فَإِنَّمَا عَلَيْكَ الْبَلَاغُ وَاللَّهُ بَصِيرٌ بِالْعِبَادِ (20)

"নিঃসন্দেহে আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য দ্বীন একমাত্র ইসলাম। যাদেরকে ধর্মগ্রন্থসমূহ দেয়া হয়েছে তাদের কাছে জ্ঞান বা কোরআনের আসার পর তারা শত্রুতা ও হিংসা ছাড়া অন্য কোন কারণে এর সত্যতার ব্যাপারে মতভেদ করেনি। যে আল্লাহর নির্দশনগুলো অবিশ্বাস করে তার মনে রাখা উচিত আল্লাহ দ্রুত হিসাব গ্রহণকারী।" (৩:১৯)



1 2 next