হযরত মুহাম্মাদ (স.) হতে বর্ণিত ৪০টি হাদীস (২)

মোঃ সামিউল হক


(৩০) হযরত মুহাম্মাদ (স.) বলেছেন : যে ব্যক্তি একটি গুনাহ হতে মুখ ফিরিয়ে নেয়, তার জন্য মহান আল্লাহর নিকটে ৭০টি কবুল হওয়া হজ্বের সওয়াব রয়েছে(মেশকাতুল আনওয়ার ফি গুরারিল আখবার, পৃ. ৩১৬)

(৩১) নবী করিম (স.) বলেছেন : মিথ্যা হতে দূরে থাকো, কেননা মিথ্যা চেহারাকে কালো করে দেয়(মুস্তাদরাক, খণ্ড ২, পৃ. ১০০)

(৩২) মহানবী হযরত মুহাম্মাদ (স.) বলেছেন : আল্লাহর নিকট বিবাহের মত প্রিয় কোন বন্ধন ইসলাম ধর্মে নেই(মুস্তাদরাক, খণ্ড ২, পৃ. ৫৩১)

(৩৩) হযরত মুহাম্মাদ মুস্তাফা (স.) বলেছেন : যে ব্যক্তি আমার স্বত্তাকে ভালবাসে, তার উচিত আমার সুন্নতের অনুসরণ করা, আমার পথে পথচলা। আর আমার সুন্নতের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বিবাহ করা(মাকারেমুল আখলাক, পৃ. ১৯৬)

(৩৪) আল্লাহর রাসূল (স.) বলেছেন : কোন নারীকে তার সৌন্দর্য্যের কারণে বিবাহ করো না, কেননা তার সৌন্দর্য তার নৈতিক অবনতির কারণ হতে পারে। একইভাবে তার সম্পদের দিকে দৃষ্টি রেখে তাকে বিবাহ করো না, কেননা তার সম্পদ তার ঔদ্ধ্যত্য ও অবাধ্যতার কারণ হতে পারে। বরং কোন নারীকে তার ঈমানের কারণে বিবাহ করো(মাহাজ্জাতুল বাইদ্বা, খণ্ড ৩, পৃ. ৮৩)

(৩৫) রাসুলে আকরাম (স.) বলেছেন : গুনাহ হতে তওবা করা সর্বদা পছন্দনীয় কাজ, কিন্তু যুবক বয়সে এ কাজটি অধিক পছন্দনীয়(মাজমুয়াতুল ওয়ারাম, খণ্ড ২, পৃ. ১১৮)

(৩৬) নবী করিম (স.) বলেছেন : জ্ঞানী ব্যক্তিরা দুই প্রকারের : যে আলেম নিজের জ্ঞানের উপর আমল করে তার জ্ঞান তার জন্য পরিত্রাণদাতা হয়। আর যে আলেম নিজের জ্ঞানকে ত্যাগ করে সে ধ্বংস হয়ে যায়(বিহারুল আনওয়ার, খণ্ড ২, পৃ. ৩৬)

(৩৭) মহানবী হযরত মুহাম্মাদ (স.) বলেছেন : হে আবুযার! ঐ ব্যক্তি কেয়ামতের দিন মহান আল্লাহর নিকট সবচেয়ে নিকৃষ্ট, যে নিজের জ্ঞান হতে উপকৃত হয়না(লি-আলিল আখবার, পৃ. ১৬১)

(৩৮) হযরত রাসুল (স.) দেখলেন মসজিদে দুটি দল বসে আছে; একট দল ইসলামি জ্ঞানচর্চায় ব্যস্ত এবং অপরটি আল্লাহর নিকট প্রার্থনা ও মুনাজাতে ব্যস্ত। আল্লাহর নবী (স.) বললেন : উভয় দলই আমার পছন্দের, কিন্তু জ্ঞানচর্চাকারী দলটি প্রার্থনায়রত দলটি অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ। আর আমি মহান আল্লাহর পক্ষ হতে মানুষকে শিক্ষা দানের লক্ষ্যে প্রেরিত হয়েছি। অতঃপর মহানবী (স.) জ্ঞানচর্চাকারী দলটিতে যেয়ে বসলেন। (বিহারুল আনওয়ার, খণ্ড ১, পৃ. ২০৬)

(৩৯) মহানবী (স.) বলেছেন : যে ব্যক্তি নামাযকে বিলম্বে পড়ে, (কেয়ামতের দিন) আমার শাফায়াত তার পর্যন্ত পৌঁছাবে না(বিহারুল আনওয়ার, খণ্ড ৮৩, পৃ. ২০)

(৪০) আল্লাহর রাসূল (স.) বলেছেন : মহান আল্লাহর নিকট সবচেয়ে ঘৃণিত হালাল হচ্ছে তালাক(সুনানে আবি দাউদ, কিতাবুত তালাক, পৃ. ১৮৬৩)#



back 1 2