সূরা আলে ইমরান ৮-১৩

ড. সামিউল হক
রেডিও তেহরান

সূরা আলে ইমরান; আয়াত ৮-১৩ (পর্ব ২)

সূরা আলে ইমরানের ৮ এবং ৯ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে-


رَبَّنَا لَا تُزِغْ قُلُوبَنَا بَعْدَ إِذْ هَدَيْتَنَا وَهَبْ لَنَا مِنْ لَدُنْكَ رَحْمَةً إِنَّكَ أَنْتَ الْوَهَّابُ (8) رَبَّنَا إِنَّكَ جَامِعُ النَّاسِ لِيَوْمٍ لَا رَيْبَ فِيهِ إِنَّ اللَّهَ لَا يُخْلِفُ الْمِيعَادَ (9)

 

"জ্ঞানী লোকেরা বলে, হে আমাদের পালনকর্তা! সরল পথ দেখানোর পর তুমি আমাদের অন্তরকে আর বাঁকা করে দিও না এবং তোমার পক্ষ থেকে আমাদেরকে অনুগ্রহ দান কর। তুমিই সব কিছুর দাতা।" (৩:৮) "হে আমাদের পালনকর্তা! তুমি মানুষকে একদিন অবশ্যই একত্রিত করবে: এতে কোন সন্দেহ নেই। নিশ্চয় আল্লাহ প্রতিশ্রুতি লঙ্ঘন করেন না।" (৩:৯)

গত পর্বের আলোচনায় আমরা বলেছিলাম কোরআনের আয়াতের ব্যাপারে জ্ঞানীদের মধ্যে দু'টি দল রয়েছে। এদের একদল নিজেরাই বিভ্রান্ত এবং কোরআনের অর্থ বিকৃতির মাধ্যমে তারা নিজেদের বিকৃত মতামতের যুক্তি দেখাতে চায়। কিন্তু অন্য একদল প্রকৃত জ্ঞানকে কাজে লাগিয়েছেন এবং জ্ঞানের গভীরে প্রবেশ করেছেন। এই দল আল্লাহর বিধানের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে এবং আল্লাহ কোরআনের আয়াত দিয়ে যা যা বোঝাতে চেয়েছেন তা-ই অনুধাবন করেন ও প্রয়োজনে তা বর্ণনা করেন। কিন্তু জ্ঞানী লোকেরাও ভুল করতে পারেন। তাই দূরদর্শী জ্ঞানীরা তাদের জ্ঞান ও ঈমান থাকা সত্ত্বেও তাদের অন্তরকে সব ধরনের বিচ্যুতি ও ভুল ত্রুটি থেকে রক্ষার জন্য আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করেন যাতে বিভ্রান্ত দলের অন্তর্ভূক্ত না হন। এই সব জ্ঞানী লোক কিয়ামত বা পুনরুত্থানকে সব সময়ই নিজেদের সামনে উপস্থিত দেখতে পান এবং প্রমাণ ছাড়া কোন কিছুকে আল্লাহর বক্তব্য বলে উল্লেখ করেন না। কারণ তাঁরা জানেন এ ধরনের বক্তব্যের জন্য একদিন আল্লাহর বিচারালয়ে জবাবদিহি করতে হবে এবং ঐ আদালতকে বিন্দুমাত্র ফাঁকি দেয়াও অসম্ভব। ভুল বা দুশ্চিন্তার জন্য ওয়াদা খেলাপ করা অথবা অক্ষমতা বা ভয় পাওয়া এসবের কোনটিই আল্লাহর পবিত্র সত্ত্বায় দেখা যায় না।

এই দুই আয়াতের মূল শিক্ষা হলো,আমরা যেন নিজেদের ঈমান ও জ্ঞান নিয়ে অহংকার না করি। বহু জ্ঞানী ব্যক্তি সেবার পরিবর্তে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে এবং অনেক মুমিন শেষ পর্যন্ত কাফের ও ধর্মহীন বা বেদ্বীন অবস্থায় মারা গেছেন।

সূরা আলে ইমরানের ১০, ১১ ও ১২ নম্বর আয়াতে মহান আল্লাহ বলেছেন-

إِنَّ الَّذِينَ كَفَرُوا لَنْ تُغْنِيَ عَنْهُمْ أَمْوَالُهُمْ وَلَا أَوْلَادُهُمْ مِنَ اللَّهِ شَيْئًا وَأُولَئِكَ هُمْ وَقُودُ النَّارِ (10) كَدَأْبِ آَلِ فِرْعَوْنَ وَالَّذِينَ مِنْ قَبْلِهِمْ كَذَّبُوا بِآَيَاتِنَا فَأَخَذَهُمُ اللَّهُ بِذُنُوبِهِمْ وَاللَّهُ شَدِيدُ الْعِقَابِ (11) قُلْ لِلَّذِينَ كَفَرُوا سَتُغْلَبُونَ وَتُحْشَرُونَ إِلَى جَهَنَّمَ وَبِئْسَ الْمِهَادُ (12)

"নিশ্চয়ই যারা অবিশ্বাস করে, তাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ততি আল্লাহর শাস্তির মোকাবেলায় কোন কাজে আসবেনা এবং তারাই হবে দোযখ বা নরকের জ্বালানী ।" (৩:১০)



1 2 next