তাফসীর বিষয়ক অনুষ্ঠান-১

রেডিও তেহরান

সূরা বাকারার ৩ নম্বর আয়াতের কয়েকটি শিক্ষণীয় দিক এবার তুলে ধরা যাক

প্রথমত: এই বিশ্বজগত কেবল বস্তুজগতের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয় বরং এমন বহু বিষয় আছে যা আমাদের দৃষ্টির আড়ালেতবে আমাদের অন্তর ও বিচারবুদ্ধি সেসবের অস্তিত্ব স্বীকার করেতাই সেসব অদৃশ্যের প্রতি আমাদের বিশ্বাস করা উচি

দ্বিতীয়ত: ঈমান কর্ম থেকে বিচ্ছিন্ন নয়মুমিন ও বিশ্বাসী ব্যক্তি কাজের লোকঅবশ্য ঐসব কাজ যার নির্দেশ আল্লাহ তাকে দিয়েছেন

তৃতীয়ত: নামাজ হলো ঈমানদার ব্যক্তিদের কাজের কেন্দ্রবিন্দু

চতুর্থত: আমাদের যাকিছু আছে সবই আল্লাহরতাই এর কিছু অংশ আল্লাহর জন্য দান করবোআর আল্লাহও দুনিয়া এবং আখেরাতে আমাদেরকে এর উত্তম প্রতিদান দেবেন

সূরা বাকারার এ আয়াতের আরেকটি শিক্ষণীয় দিক হলো-ইসলামকে সামাজিক ধর্ম হিসেবে তুলে ধরাইসলাম সমাজ পরিচালনার জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ ধর্মএ ধর্ম আল্লাহর সাথে সম্পর্কের কথাও বলে, আবার মানুষের সাথে সম্পর্কের কথাও বলেএকই সাথে সমাজের প্রয়োজনের দিকে লক্ষ্য রাখার নির্দেশ দেয়

এবারে কোরআনের ভাষায় মুমিন ব্যক্তিদের আরো কিছু বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে জানা যাকসূরা বাকারার ৪র্থ আয়াতে বলা হয়েছে-"মুত্তাকী ও পরহেযগার তারাই যারা তোমার উপর এবং তোমার আগের পয়গম্বরদের উপর যা অবতীর্ণ হয়েছে সেগুলোর প্রতি বিশ্বাস রাখার পাশাপাশি, পরকালের প্রতিও পরিপূর্ণ বিশ্বাসীআল্লাহকে চেনার একটি পথ হলো অহীআর তাই তাকওয়া সম্পন্ন ব্যক্তিরা অহীতে বিশ্বাস করেনএর আগের আয়াতে যেমনটি বলেছি উপলদ্ধি ক্ষমতা শুধু মানুষের ইন্দ্রিয়ের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, বরং বস্তুগত জগতের উর্দ্ধেও ভিন্ন জগত রয়েছে যার অস্তিত্বকে মানুষের আক্‌ল বা বিচারবুব্ধি প্রবলভাবে সমর্থন করেতবে এই আক্‌লও নিখুঁতভাবে ঐ জগত উপলদ্ধিতে অক্ষমআর এ জন্যে আল্লাহপাক অহী পাঠিয়ে আমাদের ক্ষমতাকে পূর্ণ করেছেনআমাদের আক্‌ল বা বিচারবুদ্ধি বলে-একজন স্রষ্টা আছেনকিন্তু অহী আমাদেরকে ঐ স্রষ্টার গুণ ও বৈশিষ্ট্য বর্ণনা দেয়আমাদের বিচারবুদ্ধি বলে, মানুষকে উপযুক্ত পুরস্কার বা শাস্তি দেয়ার জন্য মহাবিচারের ব্যবস্থা থাকতে হবেআর অহী আমাদেরকে বলে, কেয়ামতের মাধ্যমেই হবে সেই মহাবিচারঅতএব দেখা যাচ্ছে, বিচারবুদ্ধি ও অহী একে অন্যের পরিপূরক, আর ঈমানদার ব্যক্তিরা উভয় পন্থা ব্যবহার করেনঅহী শুধু মহানবী মোহাম্মদ (স:) এর উপরই নাযিল হয়নি, বরং সব নবীর উপরই নাযিল হয়েছে আল্লাহর প্রত্যাদেশ বা অহীতাই পরহেযগার ও খোদাভীরু লোকদের অযৌক্তিক কোন বিদ্বেষ নেইতারা পূর্ববর্তী নবীদের অস্বীকার করেন না, বরং নবীজীর পাশাপাশি তারা আল্লাহর সব পয়গম্বর এবং তাদের উপর নাযিলকৃত অহীতে বিশ্বাস করেনএ ছাড়াও সূরা বাকারার ৪ নম্বর আয়াতে মুমিনদের আরেকটি বিশ্বাসের কথা বলা হয়েছেআর তা হলো আখেরাতপরকালও একটি অদৃশ্য বিষয়পরকাল সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হলে অহীর উপর ভরসা করা ছাড়া উপায় নেইএর ভিত্তিতে মুমিন ব্যক্তিরা কেয়ামতে পূর্ণ বিশ্বাস রাখেন এবং মৃত্যুকে মানুষের জীবনের চূড়ান্ত পরিসমাপ্তি বলে মনে করেন নাসূরা বাকারার এ আয়াতটি থেকে আমাদের কয়েকটি শিক্ষণীয় বিষয় হলো:

প্রথমত: সকল নবী রাসূলের উদ্দেশ্য এক ও অভিন্নতাই সব আসমানী গ্রন্থের প্রতি ঈমান রাখা প্রয়োজন

দ্বিতীয়ত: ঐশী গ্রন্থগুলোর উত্তরাধিকারী হলো মুসলিম উম্মাহতাই মুসলমানদের আসমানী কিতাব সংরক্ষণের চেষ্টা চালাতে হবে#

 



back 1 2 3 4 5 6 7 8 9 10 11 12 13 14 15 16 17 18 19 20 21 next